এক শিশু হাত পা মিলিয়ে মোট ৩১ টি আঙুল | Bahumat

এক শিশু হাত পা মিলিয়ে মোট ৩১ টি আঙুল

হংহং

ঘর আলো করে কোল জুড়ে সন্তান এসেছে চীনের জো চ্যানলিন দম্পতির। কিন্তু শত আনন্দের মধ্যেও তাদের কপালে দেখা দিয়েছে দুশ্চিন্তার ভাঁজ। কারণ তাদের ফুটফুটে সন্তান জন্ম থেকেই অস্বাভাবিক হাত পা নিয়ে এসেছে পৃথিবীতে। হংহং নামে এই শিশুটির হাত পা মিলিয়ে মোট ৩১ টি আঙুল রয়েছে।চীনের হুনান প্রদেশের পিংজিয়াং কাউন্টির জংপিং গ্রামের জো চ্যানলিনের সন্তান তিন মাস বয়সী শিশু হংহং।চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় হংহংয়ের এই অস্বাভাবিকতার নাম পলিডাকটাইলিজম। তার হাতে কোনো বুড়ো আঙ্গুল নেই। শ্রমিক বাবা-মার ঘরে জন্ম নেওয়া এই শিশুর মায়ের হাতে ও পায়ে অতিরিক্ত আঙ্গুল রয়েছে।জো চ্যানলিন জানান, তার স্ত্রী শেনঝেন সিটির একটি কারখানায় কাজ করে। তার স্ত্রীর হাতে ও পায়ে একটি করে বেশি আঙ্গুল রয়েছে। তারা আগে থেকেই চিন্তিত ছিলেন যে তাদের সন্তান এ ধরনের অস্বাভাবিকতা নিয়ে জন্ম নিতে পারে। তাই তার জন্মের আগে শেনঝেনের তিনটি বড় হাসপাতালে পরীক্ষা করার সময় কোনো জন্মগত ত্রুটি দেখতে পাননি চিকিৎসকেরা।তাই জন্মের পর হং হংয়ের বাবা-মার দুঃখ বেড়ে যায় অনেক। হংহংয়ের ডান হাতে সাতটি, বাম হাতে আটটি ও দুই পায়েই আটটি করে আঙ্গুল।এটি হংহংয়ের জন্য প্রাণঘাতি কোনো সমস্যা নয়। কিন্তু বড় হয়ে সমাজে চলতে গেলে, এই অস্বাভাবিকতা তার জন্য খুবই পীড়াদায়ক হবে। কারণ এ ধরনের অস্বাভাবিক শারীরিক গঠন অন্যদের কৌতুহলী করে এবং নিজের কাছে বিদ্রুপের বিষয় হয়ে উঠে। তাই তারা অনেকগুলো হাসপাতালে নিয়ে গেছেন তাকে।চিকিৎসকেরা অবশ্য তাদের আশার কথা শুনিয়েছেন। হংহংয়ের বয়স ছয় মাস হলে ও পরে এক বছর হলে দুদফা অস্ত্রপচার করে আঙ্গুলগুলো কমানো যাবে। সার্জারির পর শিশুটি আর দশটা শিশুর মতোই স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবে এমন আশা করছেন চিকিৎসকরা।তবে এখানে বাধ সেধেছে শিশুটির পরিবারের দারিদ্র্য। কারণ জটিল ঐ অপারেশন ও পরবর্তী চিকিৎসার জন্য এক লাখ থেকে পাঁচ লাখ আরএমবি (চীনা মুদ্রা) খরচ হবে। এ পরিমাণ টাকার যোগাড় করা হংহংয়ের পরিবারের পক্ষ সম্ভব নয়।

Top