স্বর্ণের গাড়ি | Bahumat

স্বর্ণের গাড়ি

স্বর্ণের গাড়ি

স্বর্ণে মোড়ানো একটি গাড়ির মালিক যদি হতে পারেন তাহলে কেমন হয়? উচ্চাভিলাষীরাও সাধারণত এমন স্বপ্ন দেখতে সাহস পান না। কেননা এ তো কল্পনারও বাইরে! কিন্তু এবার কল্পনাকে বাস্তবে রূপ দিয়েছে অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়াররা।  সম্প্রতি দুবাইয়ে স্বর্ণে মোড়ানো একটি গাড়ি প্রদর্শণ করা হলো। এর দাম হাঁকা হয়েছে ১ মিলিয়ন ডলার।দুবাই ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে অনুষ্ঠিত প্রদর্শণীতে এই গাড়িটিই ছিলো সবচেয়ে বড় আকর্ষণ। নামকরা নকশাবিদ তাকাহিকো ইজাওয়া কার রেসিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে এই গাড়ির নকশা করেছেন। নিসান আর থার্টি ফাইভ জিটি মডেলের এই গাড়িটির নাম দেয়া হয়েছে ‘গডজিলা’।হলিউডের কল্পকাহিনীর বিশাল দানব গডজিলার মতো এটি দেখতে ভয়ংকর নয়, উল্টো এটির কারুকাজ মুগ্ধ করার মতো; সৌন্দর্য্যে অনন্য। তবে দামের কারণেই হয়তো এমন দানবীয় নাম! গাড়িটির ইঞ্জিনে আছে বিশেষ সুবিধা। চালক চাইলেই যে কোনো সময় রেসিং কারের মতো দ্রুত গতিতে ছুটবে এই গাড়ি।গাড়িটি পেইন্ট করার জন্য তাকুমি টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে। এতে রাজকীয় রূপ পেয়েছে গাড়িটি। স্বর্ণে মোড়ানো এই গাড়ির  ডিজাইন, নির্মাণশৈলী সত্যি অপূর্ব। শুধু গাড়ির ওপরের অংশই নয়, এর ৩.৮ লিটার ভি সিক্স টুইন টারবো ইঞ্জিনটিতেও (৫৪৫ হর্স পাওয়ার) দেয়া হয়েছে স্বর্ণের আস্তরণ।যে কারণে সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে গেছে এই গাড়ির ক্রয়মূল্য। উন্নয়নশীল দেশের মানুষের জন্য না হলেও মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আমেরিকার ধনীরা এ ধরনের গাড়ি কেনার সামর্থ্য রাখেন। অটোমেকানিকা বিশ্বের সবচেয়ে বড় অটোমোবাইল মেলা, যেখানে ১৫টি হল রুমে গাড়ির সব যন্ত্রপাতি, ইলেকট্রনিক্স সিস্টেম, টায়ার, ব্যাটারি এসব বিস্তর পাওয়া যায়। এই প্রদর্শণীতে আসা  ৯০ শতাংশ প্রদর্শক  বিদেশী। বিশ্বের ২৫টি দেশের প্যাভিলিয়ন ছিলো সেখানে। গত ৮ থেকে ১০ মে এই প্রদর্শণী হয়েছে।

 

ভিডিও…

Top